শ্রীদেবী হতে চান তামান্না ভাটিয়া

0
41

শ্রীদেবীর জীবনীভিত্তিক ছবি তৈরি হচ্ছে—এমন গুঞ্জন বলিউডে। তবে নিশ্চিত খবর এখনো পাওয়া যায়নি। কী হচ্ছে তাঁর জীবনীভিত্তিক ছবি নিয়ে, কে করছেন সেখানে অভিনয়—এ বিষয়ে কিছুই খোলাসা নয়। তাকে কী? এই মহানায়িকাকে নিয়ে মুগ্ধতা যেন কাটছে না ভক্তদের। তাই তাঁর চরিত্রে অভিনয় করতে মুখিয়ে আছেন এই প্রজন্মের তরুণ অভিনেত্রীরা। শ্রীদেবীর অভিনয়ের সোনালি সময়ে এই অভিনেত্রীরাই যে ছিলেন পাঁড় ভক্ত। এমন পাঁড় ভক্ত ভারতের দক্ষিণী অভিনেত্রী তামান্না ভাটিয়া। আগ্রহ প্রকাশ করলেন শ্রীদেবীর চরিত্রে অভিনয় করতে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে মনের কথাটি জানালেন তামান্না। ভারতীয় গণমাধ্যমকে দেওয়া সেই সাক্ষাৎকারে তামান্না বলেন, বলিউডে দুটো জিনিস তিনি করতে চান। তার মধ্যে একটি হলো শ্রীদেবীর জীবনীভিত্তিক ছবিতে অভিনয় করা। তিনি বলেন, ‘আমি কিশোর বয়স থেকেই শ্রীদেবীকে অনুসরণ করি। আমি সব সময়ই ভেবেছি, শ্রীদেবীকে নিয়ে যদি বায়োপিক হয়, তাহলে সেখানে আমি থাকতে চাই। আমি শ্রীদেবীজিকে রুপালি পর্দায় চিত্রায়িত করতে চাই।’

শুধু তা–ই নয়, এই অভিনেত্রী জানান, তিনি নাচের ছবিতেও অভিনয় করতে চান। এর আগে শ্রীদেবী মারা যাওয়ার পরে তাঁর ছবি দিয়ে টুইটারে নিজের মুগ্ধতা জানিয়েছিলেন। সে সময় লিখেছিলেন ‘আপনাকে হারানোর থেকে আর হৃদয়ভাঙা কিছুই হতে পারে না। শ্রীদেবী ছিলেন জাদুকরি। তিনি সিনেমায় সৌন্দর্য তৈরি করেছিলেন। এখন বিশ্বাস করতে পারি না, তিনি নেই। এটা সিনেমার জন্য অবশ্যই অন্ধকার দিন।’

তামান্না ভাটিয়া ২০১৩ সালে সাজিদ খানের সিনেমা ‘হিম্মতওয়ালা’য় অভিনয় করেছিলেন। ছবিটি ১৯৮৩ সালে শ্রীদেবী অভিনীত ‘হিম্মতওয়ালা’ ছবির রিমেক ছিল; যদিও ছবিটি বক্স অফিসে খুব একটা ভালো করতে পারেনি। বেশ কিছু দিন গুঞ্জন উঠেছিল, পরিচালক রাম গোপাল ভার্মা শ্রীদেবীর বায়োপিক বান্নাচ্ছেন। পরে তিনি টুইট করে জানিয়েছেন, না, তিনি করছেন না। আর কোনো অভিনেত্রীই নাকি শ্রীদেবীর চরিত্রে অভিনয়ের যোগ্যতা রাখেন না।

সৌন্দর্যে ও অভিনয়ে দুটোতেই নিজেকে চিনিয়েছেন দক্ষিণী এই অভিনেত্রী; যদিও বলিউডে এখনো তিনি অপরিচিত মুখ। তবে ভারতের ধুন্ধুমার ব্যবসাসফল ছবি ‘বাহুবলী’তেও অভিনয় করেছিলেন তামান্না। সৌন্দর্য দিয়েই মাত করেছেন সবাইকে। এখন নাকি অভিনয়ের দিকে আরও বেশি মনোযোগী হতে চান। কারণ, সৌন্দর্যের ওপরে নাকি তাঁর কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। কিন্তু অভিনয় তিনি নিজের মতো করে করে যেতে পারবেন আজীবন।

১৫ বছর বয়সে অভিনয়ে অভিষেক হয় তামান্নার। এরপর একে একে করে যেতে থাকেন দক্ষিণী সব সিনেমা। যদিও তাঁর বেড়ে ওঠা বলিউডের প্রাণকেন্দ্র মুম্বাইয়ে। তামান্না বলেন, ‘আমি খুব তাড়াতাড়ি বড় হয়ে গেলাম। আমার ইচ্ছা ছিল আমি একজন শক্তিশালী অভিনেত্রী হব। আমি এখন সিদ্ধান্ত নিয়েছি, নায়িকা তকমা মুছে যাওয়ার পর অভিনয়ের দিকে মনোযোগ দেব। আমি বুঝতে পেরেছি, গ্ল্যামার জগৎ নিয়ন্ত্রণের বাইরে।’

তামান্না আরও বলেন, ‘আমি এযাবৎ পুরুষকেন্দ্রিক চলচ্চিত্রে খুবই স্থূল চরিত্রে অভিনয় করেছি। যেখানে একটি মেয়ে আসবে, নাচবে, গাইবে, আবার চলে যাবে। কিছু চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছি, যেখানে গান আছে, নাচও আছে, আবার শক্তিশালী চরিত্রও আছে। যদি আপনি শক্তিশালী চরিত্রে অভিনয় করেন, তবে তার একটি বিশালতা থাকে। “বাহুবলী” ছিল একটি যুদ্ধের সিনেমা। সেখানে অভিনয়ের বিশাল জায়গা ছিল। আমার কাছে তথাকথিত নায়িকাকেন্দ্রিক সিনেমার থেকে অভিনয়কেন্দ্রিক সিনেমা ভালো লাগে।’

তবে যেনতেন ছবি করতে এখন একদমই নারাজ এই অভিনেত্রী। তাঁর ভাষায়, ‘এখন প্রচুর পরিমাণে সিনেমা হচ্ছে। কিন্তু সেগুলো ভালো সিনেমা নয়। যৌক্তিক কারণেই এগুলো ভালো সিনেমা না। আমি সেই সিনেমাগুলোই করতে চাই, যেগুলো আমাকে রোমাঞ্চিত করে। আমি শুধু করার জন্যই কোনো হিন্দি সিনেমা করতে চাই না।’

এই অভিনেত্রীর এসব কথাবার্তায় এটা স্পষ্ট, নামকাওয়াস্তে অভিনয়ে এখন আর তাঁর মন নেই। অভিনয় দিয়ে নিজেকে চেনাতে চান। আর শ্রীদেবীর চরিত্রটি যদি বগলদাবা করতে পারেন, তবে অভিনয়ে নিজেকে চেনানোর এটি হবে মোক্ষম সুযোগ।

সূত্র ইন্ডিয়া টুডে, ডিএনএ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here