সিলেট জেলাকে স্মার্ট শহরে রূপান্তর

0
38

সিলেট জেলাকে স্মার্ট শহরে রূপান্তরের অংশ হিসেবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) কর্তৃক গৃহীত ডিজিটাল সিলেট সিটি প্রকল্পের অগ্রগতি পরিদর্শন করেছেন আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি।

প্রকল্পের আওতায় দেশে প্রথমবারের মতো চেহারা ও যানবাহনের নম্বর প্লেট চিহ্নিতকরণ আইপি ক্যামেরা বসেছে এই সিলেট নগরে। এসব আইপি ক্যামেরা নিয়ন্ত্রণের জন্য মনিটরিং রুম সিলেট জেলার কোতোয়ালি মডেল থানায় স্থাপন করা হয়। সিলেট মহানগর পুলিশ এ সিস্টেমের নিয়ন্ত্রণের দায়িত্বে থাকবে।

এসব ক্যামেরায় ধারণ করা ছবি দিয়ে ব্যক্তির পরিচয় ও যানবাহনের বিস্তারিত তথ্যাদি তাৎক্ষণিকভাবে পেয়ে যাবে পুলিশ, যা আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশের দক্ষতা বৃদ্ধির পাশাপাশি জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন করা হবে।

প্রকল্পের আওতায় সিলেট নগরের ৬২টি স্থানে মোট ১২৬ এক্সেস পয়েন্টের মাধ্যমে ফ্রি ইন্টারনেট সেবা প্রদানের কার্যক্রম চালু রয়েছে।

নাগরিকদের জীবনযাত্রার মান উন্নতিতে সহায়তা করবে এটি । সাধারণ নাগরিক, এমনকি যাদের ইন্টারনেট ব্যবহারের সামর্থ্য নাই, তারাও বিনা মূল্যে এই ওয়াই-ফাই জোন থেকে ইন্টারনেট এক্সেস করে জনসাধারণের জন্য সরকারি নীতি ও উন্মুক্ত পরিষেবাগুলোতে প্রবেশ করে সেবা গ্রহণ করতে পারবে। এ সিস্টেমটি পরবর্তী সময়ে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মাধ্যমে পরিচালিত হবে।

আইপি ক্যামেরা বেজড সার্ভিলেন্স সিস্টেমের মনিটরিং সেন্টার সরেজমিন পরিদর্শনকালে আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ‘স্মার্ট শহর গড়তে এবং শহরের মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এ ধরনের আধুনিক এবং আস্থাজনক স্মার্ট সিকিউরিটি সলুশন সংবলিত মনিটরিং সিস্টেম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকবে ।

এ মুহূর্তে যেই নিরাপত্তা সিস্টেমগুলো উন্নত দেশে ব্যবহৃত হচ্ছে আমরা সেগুলো এখন বাস্তবায়ন করছি। উন্নত দেশ, যাদের আয় প্রায় ৩০,০০০ অথবা ৫০,০০০ ডলার পার কেপিটা, সেই দেশের জনগণকে সরকার যেই সার্ভিস দেয়, আমরা ২০০০ ডলার পার কেপিটা ইনকাম করা জনগণকে সেই সার্ভিস দিচ্ছি।’

তিনি আরও বলেছেন, ‘এখন বন্দুক পিস্তল নিয়ে রাস্তা পাহারা দেয়ার মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। এখন প্রত্যেক গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় এরকম আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স সংবলিত বিভিন্ন ক্যামেরা স্থাপনের মাধ্যমে মনিটরিং সেন্টারে ২৪ ঘণ্টা রাউন্ড দ্য ক্লক কাজ করে জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাবে।

এ প্রকল্পের আওতায় সিলেট জেলাকে মডেল টাউন হিসেবে গড়ে তোলা হবে। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব, এটুআইয়ের প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ মুসতাফিজুর রহমান, ডিজিটাল সিলেট সিটি প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ মহিদুর রহমান খান ও উপ-প্রকল্প পরিচালক মধুসূদন চন্দ্র প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here